digital-marketing

ডিজিটাল মার্কেটিং গাইডলাইন এবং প্রয়োজনীয় টুলস।

 

 

ডিজিটাল মার্কেটিং গাইডলাইন শীর্ষক আজকের আলোচনায় আজকে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কিছু বিশেষ টিপস শেয়ার করবো। তো বন্ধুরা সাথেই থাকুন।

প্রথমেই আলোচনা করা যাক ডিজিটাল মার্কেটিং আসলে কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং এমন একটি কৌশল যার সাহায্যে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করে কোন পণ্যের প্রচারণার মাধ্যমে সর্বাধিক সংখ্যক ক্রেতা খুঁজে বের করা যায়।

তার মনে হলো Digital Marketing ইন্টারনেট সংশ্লিষ্ট একটি বিষয়।

 

Digital Marketing এর জনপ্রিয় ক্যাটাগরি

এসইও – Search Engine Optimization (SEO)

             ১) ই-মেইল মার্কেটিং – Email Marketing

             ২) সোশ্যাল মেডিয়া মার্কেটিং – Social Media Marketing (SMM)

             ৩) কনটেন্ট মার্কেটিং – Content Marketing

              ৪) মিউজিক মার্কেটিং – Music Marketing

 

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার জন্য করণীয়

              ১) ডিজিটাল মার্কেটিং এর ব্যসিকগুলো জানতে হবে।

              ২) কনটেন্ট রাইটিং সম্পর্কে ভালভাবে জানতে হবে।

              ৩) মার্কেটিং টুলস সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে।

              ৪) গুগল কিভাবে কাজ করে তা জানতে হবে।

              ৫) সোশ্যাল মিডিয়া কিভাবে ব্যবহার করতে হয় তা জানতে হবে।

              ৬) এসইও কিভাবে করতে হয় তা জানতে হবে।

 

 

Digital Marketing করে কি কি লাভ হতে পারে

                ১) যেহেতু ডিজিটাল মার্কেটিং ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে থাকে তাই সহজে পণ্যের প্রচারণা চালানো সম্ভব।

                 ২) অনেক কম সময়ে অনেক মানুষের কাছে ব্র্যান্ড/প্রোডাক্ট সম্পর্কে তুলে ধরা যায়।

                  ৩) Digital Marketing করার জন্য কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। বাসায় বসে নিজে নিজেই পুরো মার্কেটিং শেখা যায় বলে অর্থ খরচ কম হয়।

                   ৪) ডিজিটাল মার্কেটিং বর্তমান সময়ের সবচেয়ে সেরা মার্কেটিং পদ্ধতি।

                   ৫) নতুন বা পুরাতন উভয় ধরণের পণ্য দিয়েই ব্যবসা পরিচালনা করা সম্ভব।

                   ৬) ছোট থেকে বড় সকল ধরণের পণ্যই Digital Marketing এর মাধ্যমে করা যায়।

 

ডিজিটাল মার্কেটিং (Digital Marketing) কিভাবে শেখা যায়

আমরা বর্তমান সময় ডিজিটাল মার্কেটিং তিনটি উপায়ে খুব ভালভাবে শিখতে পারি।

                     ১) অনলাইন থেকে কোন কোর্স ক্রয় করে

আমরা অনলাইন থেকে ভালমানের কোন প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স ক্রয় করে Digital Marketing শিখতে পারি।

এক্ষেত্রে প্রথমে উক্ত প্রতিষ্ঠানের সফলতা খুঁজে দেখতে হবে। প্রতিষ্ঠানটি কত বছর যাবৎ সফলতার সাথে ব্যবসা করছে তা দেখতে হবে।

ভিডিও কোর্সের ক্ষেত্রে ভিডিওর গুণগত মান যাচাই করে নিতে হবে। কেননা -হযবরল- কোন ভিডিও থেকে কিছু শেখা সম্ভব নয়।

                      ২) অনলাইনে ইউটিউব কিংবা গুগলকে সঙ্গী বানিয়ে

আপনি অনলাইন থেকে ইউটিউবে বিভিন্ন ভিডিও দেখেও একজন ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারবেন।

অথবা, 

আপনি চাইলে গুগলে আপনার চাহিদা অনুযায়ী সার্চ করে অনেক তথ্য আহরন করে নিজের শেখার গতিকে করতে পারেন প্রাণবন্ত। 

 

                      ৩) কোন আইটি সেন্টার থেকে কোর্স করে

আপনি চাইলে কোন ভাল মানের আইটি সেন্টার থেকে কোর্স করেও একজন ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে নিজেকে বিশ্বের হাজারো মার্কেটারের মাঝে প্রকাশ করতে পারেন। 

তবে তার জন্য আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে আপনি সঠিক কোন প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করছেন কি না তা দেখে নিবেন। 

অবশ্যই তাদের রিভিউ চেক করে নিবেন। তারা কি পরিমান সফল স্টুডেন্ট তৈরী করছে তা ভালভাবে খেয়াল করবেন।

 

Digital Marketing in Bangla

 

প্রতিষ্ঠানের রিভিউ ভাল না হলে এবং লোভনীয় অফার দেখালে এমন প্রতিষ্ঠান এড়িয়ে চলায় উত্তম।

তাহলে,

বন্ধুরা, এখন জানা যাক কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা শুরু করবেন-

আপনি যদি একজন সাফল্য Digital Marketing হতে চান তবে আপানাকে প্রথমতো জানতে হবে।

Digital Marketing কি,এর প্রকারভেদ কি,এবং কিভাবে শুরু করা যাই এই ডিজিটাল মার্কেটিং।

এর পূর্নঙ্গ ধারনা থাকতে হবে।

 

আপনি জানেন কি?

Digital Marketing এর প্রধান স্তম্ভ কয়টি? অথবা এই মার্কেটিং এর শাখা কতটি?

 

Digital Marketing শেখার উপায় সমূহ-

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়– আপনি দুইভাবে এটি শিখতে পারেন-

  • পেইড মেথোড
  • ফ্রি মেথোড

 

  • পেইড মেথোড উপায়ে ডিজিটাল মার্কেটিং –

পেইড মেথোড উপায়ে শিখার জন্য পেমেন্ট করতে হয়, কেননা অনেকেই ফ্রিতে শিখতে আগ্রহী না।

ইউটিউবে পরিপূর্ণ গাইডলাইন না থাকায় আগ্রহ হারিয়ে ফেলাই ফ্রিতে শেখতে চাননা অনেকেই।

এজন্য পেইড মেথোড উপায়ে শিখতে চায়। একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার হতে চাইলে এবং এটি শিখে ক্য়ারিয়র গড়তে চাইলে একটি কোর্স অবশ্যই করতে পারেন।

অনেকেই বর্তমানে পার্সোনালি অনলাইন কোর্স করে থাকেন। আর সেখান থেকে আপনি Digital Marketing শিখতে পারেন।

এছাড়াও আমাদের দেশে অনেক আইটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সে সব প্রতিষ্ঠান থেকেও খুব সহজে আপনারা Digital Marketing শিখতে পারবেন।

তাছাড়াও আমরা অনলাইনে ই-লর্নিং ওয়েবসাইটের মাধ্যমেও কোর্স করতে পারি।

  • স্কিলস শেয়ার
  • খান একাডেমি
  • লেন্ডা উদেমি (ইত্যাদি)

উপরের এই ওয়েবসাইড গুলো থেকেও কোর্স করা যায়। তবে এগুলো হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল ওয়েবসাইট।

তাই কোর্সের ভাষা হবে পরোপুরি ইংরেজি দিয়ে। কারণ, এখানে সব এক্সপার্ট মার্কেটাররা কোর্স করে থাকেন।

তাই আপনাকে ইংরেজি ভালোভাবে জানতে হবে এবং তারা আপনাকে Digital Marketing এর এক্সপার্ট বানাতে সহায়তা করবে।

এতে করে আপানাকে Digital Marketing নিয়ে আর বাড়তি কোন চিন্তা করতে হবেনা।

 

  • ফ্রি-মেথোড উপায়ে ডিজিটাল মার্কেটিং-

ডিজিটাল মার্কেটিং এ আয় কেমন? এমন প্রশ্নের উত্তরে বলা যেতে পারে যে, এর মাধ্যমে এক সময় আপনি যা আয় করবেন তা আপনার কল্পনারও অতীত।

তবে এর জন্য আপনাকে কিন্তু অনেক বেশি পরিমাণ ধৈর্য রাখতে হবে।

এটি শেখার উত্তম প্লাটফর্ম হচ্ছে ইউটিউব। এর মাধ্যমে আমরা সহজেই স্কিল ডেভেলপ করে নিতে পারি।

আর অনেকেই ফ্রিতে ইউটিউবে আউটসোর্সিং ডিজিটাল মার্কেটিং শেখাচ্ছেন। ইউটিউবে যদি আমরা Digital Marketing লেখে সার্চ করি তবে এই সংশ্লিষ্ট অনেক ভিডিও লিস্ট চলে আসবে।

সেসব থেকে আপনি শিখতে পারেন। আর এভাবেই কোন টাকা খরচ ছাড়ায় শেখতে পারবেন।

এছাড়াও কোন নির্দিষ্ট বিষয় ইউটিউব থেকে শিখতে পারেন। এতে করে আপনার শেখার বিষয় গুলো এলোমেলো হবেনা।

এই ছিলো আমাদের Digital Marketing শেখার উপায়।

 

আরো দেখুন,

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন আনলিমিটেড

 

কিন্তু অনেক সময় দেখা যায়, আমরা Digital Marketing শেখার পরেও আমাদের  কিছু ভুলের কারণে অনেক পিছিয়ে থেকে যাই।

তাহলে এখন জেনে নেওয়া যাক সেসব ভুলগুলো-

     সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার গুরুত্ব অনেক। অনেকেই এটিকে এড়িয়ে চলে। আর এর সম্পর্কে জ্ঞান না থাকা হচ্ছে একটি বড় ভুল।

সোশ্যাল মিডিয়া হচ্ছে Digital Marketing এর অন্যতম মাধ্যম।

      বিনিয়োগের রিটার্ন

রিটার্ন সম্পর্কে না জেনে Digital Marketing করা উচিত হবেনা। কারণ, কাজ করার সময় অবশ্যই এই কথাটা মাথায় রাখতে হবে।

মার্কেটিং এর কাজের দিক বিবেচনা করে কাজ করতে হবে। যাতে করে ক্ষতির সম্মুখীন না হতে হয়।

ডিজিটাল মার্কেটিং তো শিখলাম তাহলে আয় করার জন্য কি কি করতে হবে? অর্থাৎ Digital Marketing শিখে আয় করতে হলে কি কি করতে হয়?

চলুন এবার জেনে নেব Digital Marketing শেখার পর অনলাইন থেকে আয়ের পরবর্তী ধাপ।

 

 

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার পর অনলাইন থেকে আয়

ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয় করা সম্ভব । কিন্তু শেখার বা জানার থেকে প্রফেশনাল স্কিল ও অভিজ্ঞতার মাধ্যমে আপনি ইচ্ছে মতো আয় করতে পারবেন।

তবে এই Digital Marketing করে আয় সুনির্দিষ্ট নয়।

আর ডিজিটাল মার্কেটিং থেকে সত্যিই যদি আপনি আয় করতে চান, তবে আপনাকে এই বিষয়ে অবশ্যই জ্ঞান রাখতে হবে এবং পারদর্শী হতে হবে।

তাহলেই আপনি Digital Marketing করে আয় করতে পারবেন।

 

Digital Marketing থেকে আয়-

ডিজিটাল মার্কেটিং দিয়ে আয় করার জন্যে আপনাকে সেই বিষয়ে সম্পূর্ণ ধারণা এবং দক্ষতা থাকতে হবে।

আপনি Digital Marketing করার জন্য প্রচলিত ধ্যান ধারনা থেকে নিজিকে বিরত রাকতে হবে।

আর Digital Marketing এর সকল বিষয় বস্তুর উপরে নজর রাখতে হবে। সেই সাথে নিজেকে এবং নিজের সাইটকে মজবুত করে নিতে হবে।

নিজের পরিচিতি দাঁড় করতে হবে এই বিশাল অনলাইন জগতে। এই ভাবেই Digital Marketing জগতে নিজের ভবিষ্যৎ দাঁড় করাতে হবে।

 

কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন ডিজিটাল মার্কেটিং থেকে-

Digital Marketing এর সেবা ও পণ্য প্রচার প্রচারনায় হচ্ছে মূল উদ্দেশ্য। আর এমন কাজ করার জন্য একজন ডিজিটাল মার্কেটারের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

এসব কাজের জন্য কিছু মাধ্যম ব্যবহার করে থাকেন ডিজিটাল মার্কেটাররা।
এই মাধ্যম গুলো থেকে যেকনো একটির উপরে দক্ষতা বাড়াতে হবে।

  • সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।
  • ই-মেইল মার্কেটিং মাধ্যম।
  • গুগল মার্কেটিং মাধ্যম এবং
  • সার্চ ইন্জিন অপ্টিমাইজেশন এর মাধ্যমে।

উপরের যেকনো একটি বিভাগে অভিজ্ঞতা সহ ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয় করতে পারেন নিশ্চিন্তে।

Digital Marketing এর সমস্ত কিছু নিজের আয়ত্তে নিতে হবে এবং প্রতিনিয়ত অনুশীলনের মাধ্যমে নিজের কাজের জায়গা গড়ে নিতে হবে।

এতে করে মাসে একটা এমাউন্ট আশা করা যায়।

 

Digital Marketing এর জন্য প্রয়োজনীয় কিছু টুলস

  • গুগল ট্রেন্ডস (Google Trends)
  • এনালিটিক্স অফ গুগল (Analytics of Google)
  • গুগল কিওয়ার্ড প্ল্যনার (Google Keyword Planner)
  • ইয়ান্ডেক্স মেট্রিকা (Yandex Metrica)
  • গুগল পেজ স্পিড (Google Page Speed)
  • গুগল অপ্টিমাইজ (Google Optimize)
  • বাফার (Buffer)

ডিজিটাল মার্কেটিং এ সফল হতে কোন বিষয়ে দক্ষ হওয়া লাগে?

কেমন কনফিগারেশনের ল্যাপটপ হলে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা এবং কাজ করা ভাল হবে?

চলুন জেনে নেয়া যাক কেমন ল্যাপটপ ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য কেমন ল্যাপটপ বেটার হবে?

 

Digital Marketing এর জন্য ল্যাপটপ নির্বাচন

আমরা অনেকেই Digital Marketing শেখার জন্য একটা বিষয়ে দ্বিধার মধ্যে পড়ে যাই তা হলো কেমন বৈশিষ্টের ল্যাপটপ কিংবা পিসি ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য সেরা হবে?

আসলে ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য আহামরি খুব বেশি বাজেটের ল্যাপটপ কিংবা ডেস্কটপের প্রয়োজন পড়বে না।

মোটামুটি ২০-৩৫ হাজার টাকা বাজেটের একটি ল্যাপটপ দিয়েও আপনার Digital Marketing এর যাত্রা শুরু করতে পারেন।

শেখার পর যখন আয় করবেন তখন একটি বেশি দামের ল্যাপটপ নিয়ে কাজ করবেন।

তো বন্ধুরা,

আজ এ পর্যন্তই শুভ হউক আপনার অনলাইন আয়ের যাত্রা। সে পর্যন্ত ভাল থাকেন, সুস্থ্য থাকেন। 

আল্লাহ্ হাফেজ।

 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *