freelancing

Freelancing (ফ্রিল্যান্সিং) শিখবো কিভাবে? সেরা কৌশল

 

Freelancing ফ্রিল্যান্সিং ফ্রিল্যান্সিং। শুনতে শুনতে কান ঝালাপালা। চারিদিকে ফ্রিল্যান্সিং এর যেন কলরব উঠে গেছে। যেখানে যাই শুধু শুনি ফ্রিল্যান্সিং এর গল্প।

একজন ফ্রিল্যান্সার হবার জন্য কি কি করতে হয়?

ঘরে বসে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়ের অন্যতম একটি মাধ্যম হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং সর্বজন স্বীকৃত। এর মাধ্যমে অনেকেই বর্তমানে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছেন।

আপনিও কি চান এরকম একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে বিশ্বের মাঝে তুলে ধরতে? এমন চিন্তার উদয় যদি মনের মাঝে হয় তবে ফ্রিল্যান্সিং এর চিন্তাজগতে আপনাকে অভিনন্দন।

আপনিও একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন আপনার ক্যারিয়ার।

তবে তার জন্য কঠিন অধ্যবসায় আর ধৈর্যের প্রয়োজন। যদি দুটোই আপনার থাকে তবে ফ্রিল্যান্সিং এর জগতে একজন মেহমান হিসেবে আপনাকে স্বাগতম। আপনার জন্য সাদর অভ্যর্থণা।

ফ্রিল্যান্সিং আর আউটসোর্সিং কি এক? ফ্রিল্যান্সিং মানে মুক্ত পেশা কি আউটসোর্সিং এর মত কিছু।

চলুন বিস্তারিত জানার চেষ্টা করবো আজকে।

তো বন্ধুরা আশা করি সাথেই থাকবেন,

প্রথমে জেনে নিই যে ফ্রিল্যান্সিং আসলে কি? What is freelancing in Bangla?

 

 

Freelancing (ফ্রিল্যান্সিং)

ফ্রিল্যান্সিং সম্পূর্ণরূপে একটি মুক্তপেশা। মানে যে পেশাই না আছে কোন প্যাড়া, না আছে কোন ঝামেলা। আপনার ইচ্ছেমত সময় অনুযায়ী আপনি এই পেশার সাথে যুক্ত হতে পারেন।

দিনের নির্দিষ্ট একটা সময় কাজ করতে পারেন আবার না চাইলে বিরতিও দিতে পারেন। মানে সম্পূর্ণ বিষয়টা নির্ভর করবে সম্পূর্ণ আপনার উপর। তাই একে মুক্ত পেশা বলে।

Freelancing (ফ্রিল্যান্সিং)বাংলাদেশ

এর মাধ্যমে বহু পাবলিক এখন অজস্র পরিমাণ অর্থ আয় করছে। চাইলে আপনার দ্বারাও সম্ভব। তাহলে একবার চেষ্টা করেই না হয় দেখবেন।

ফ্রিল্যান্সিং মানে কি? আপনার নিজের দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে যখন অন্য কারো কাজ করে দেবেন তখন তাকে আমরা ফ্রিল্যান্সিং বলতে পারি।

ফ্রিল্যান্সিং এ আপনার বস আপনি নিজেই। এটাই আপনার স্বাধীনতা। না আছে কেউ বকা দেবার আর না আছে কেউ আপনার সমস্যা তৈরী করার।

অনেককে দেখা যায় একটি ভালমানের চাকুরী ছেড়ে দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এর পেছনে ছুটছে। না জানি কি আছে এই ফ্রিল্যান্সিং এর মধ্যে।

তবে সবাই কি এর মাধ্যমে সফল হতে পারে। আপনার দেখা অনুযায়ী কতজন এতে সফল হয়েছে বলতে পারেন। এই সংখ্যাটা কখনই হিসেবের মধ্যে আসবে না।

এই কারণে যে, একজনের দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে সে অন্যের কাজ করে দিবে। অনেকেই বিষয়টাকে চাটুকারীতার সাথে গুলিয়ে ফেলতে পারেন।

তবে মনে রাখবেন বর্তমান সময়ের খুবই ডিমান্ডেবল একটি পেশা হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। পার্ট টাইম, ফুল টাইম উভয় প্রকারেই আপনি এই কাজগুলো করতে পারেন।

মানে ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য এমন ধরাবাধা কোন নিয়ম নেই। সেক্ষেত্রে বলতে পারেন পুরো স্বাধীনতা।

ফ্রিল্যান্সিং কোথায় শিখবো?

 

 

ফ্রিল্যান্সিং শিখবো কিভাবে?

কোন কিছু শেখাটা নির্ভর করে সম্পূর্ণরুপে আপনি কতটা সময় আর ধৈর্য দেখাচ্ছেন তার উপর। কোন উপায়ে শিখবেন সেটাও নির্ভর করবে আপনার উপর।

আমি দুটি ওয়ের কথা বলি,

ফ্রিল্যান্সিং কেন করবো?

 

 

১) অনলাইন জগৎ ইউটিউব, ফেইসবুক এবং বিভিন্ন ব্লগ থেকে

এখন বর্তমান সময় পৃথিবীর সবচেয়ে বড় জ্ঞানের কারখানা হচ্ছে গুগল এবং ইউটিউব।

কোন কিছু জানার ইচ্ছে হলে শুধুমাত্র গুগলে গিয়ে সার্চ মারার পালা। দেখবেন চোখের পলকেই কাঙ্খিত বিষয়টি চলে এসেছে।

ইচ্ছেমত ব্রাউজ করুন। আর নিজের জ্ঞানসীমাকে সমৃদ্ধ করুন। ফ্রিল্যান্সিং এ স্মার্ট ক্যারিয়ার গড়ুন।

আবার একইভাবে ভিডিওসহ কোন বিষয়কে দেখার জন্য ইউটিউবের কোন বিকল্প হয় না। তাই নিয়মিত ইউটিউব ভিডিও দেখেও আপনি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনি একটি কাজ করতে পারেন, আপনি যে বিষয়ে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাচ্ছেন তা ইউটিউবে গিয়ে সার্চ ফিল্টারে লিখুন এবং সার্চ মারুন।

দেখবেন আপনার চাওয়া বিষয়টি ভিডিও আকারে এসে হাজির। এভাবে কিছুদিনের মাথায় আপনি একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হয়ে যাবেন।

দোআ রইল সেই সাথে শুভ কামনা।

 

 

২) বিভিন্ন কোর্স ক্রয় করে নিয়মিত প্র্যাকটিসের মাধ্যমে

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার কেমন? আপনি অনলাইন  থেকে অনেক ভালমানের কোন কোম্পানির কোর্স ক্রয় করেও একজন দক্ষ ফ্রিল্যান্সার হতে পারেন।

তবে কোর্স ক্রয়ের পূর্বে একটি বিষয় খেয়াল রাখবেন যেহেতু এখানে অনলাইনের একটি বিষয় নিহিত। সেই সূত্র ধরে বলা যায়। আপনাকে নিয়মিত প্র্যাকটিস করতে হবে।

আপনি জানেন যে, গাইতে গাইতে গায়েন। নিয়মিত চর্চা করুন আর হয়ে উঠুন দক্ষ কারিগর।

আজ শুরু করলেন দু-দিন পর ৫ দিনের জন্য বন্ধ। এভাবে কিন্তু সফল হওয়া মুশকিল হয়ে যাবে। দু-দিনে যা শিখবেন তা ৫ দিনে গুলে খাবেন।

তাই দু-দিন শেখার পর ধীরে ধীরে অল্প করে শেখার চেষ্টা করুন। থেমে থাকবেন না।

চালিয়ে যান। চালিয়ে যান। চালিয়ে যান…

 

 

৩) পার্শ্ববর্তী কোন ভালমানের ট্রেইনিং সেন্টার থেকে

ফ্রিল্যান্সিং কি আমি পারবো? পার্শ্ববর্তী কোন ভালমানের ট্রেইনিং সেন্টার থেকে আপনার যাত্রা শুরু করতে পারেন। এক্ষেত্রে তাদের রিভিউ চেক করেন। যদি ভাল হয় তবে সেখান থেকে কোর্স করুন।

মনে রাখবেন, আপনি শেখার জন্য যা ব্যয় করবেন তা আসলে কোন প্রকারের ব্যয় নয়। প্রতিষ্ঠানটি কত দিন ধরে তাদের সেবা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে?

কতগুলো সফল স্টুডেন্ট তারা তৈরী করতে পেরেছে সেদিকে নজর দিন। তাদের কোর্স মূল্য যদি স্বাভাবিক না হয় তবে এড়িয়ে চলুন।

অতিরিক্ত প্রলোভন দেখালে তাদের থেকে দূরে থাকুন। মনে রাখবেন সফল ট্রেইনিং সেন্টারের বেশি প্রচার করতে হয় না।

তারা অটোমেটিক স্টুডেন্ট তৈরী করতে পারে। সো জেনে বুঝে আগ বাড়েন, হয়তো অনেক বড় ক্ষতির হাত থেকে বাঁচতে পারবেন।

তাহলে,

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো-২০২২

 

আপনার মতে কি করলে সব থেকে ভাল হয়। ভাইজান বিষয়টি সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করবে। আপনার বাজেট সীমা কত? কোন কাজের প্রতি আপনি আগ্রহী?

প্রতিদিন কি পরিমাণ সময় ব্যয় করতে পারবেন শেখার পেছনে? নিজের থেকে চেষ্টা করে শেখার আগ্রহ কতটা? নাকি অন্য কারও মাধ্যমে শেখা পছন্দ করেন?

আপনি যদি শুনে এবং দেখে খুব ভাল পরিমাণে আয়ত্বে আনতে পারেন। তবে গুগল এবং ইউটিউবকে সঙ্গী বানান। 

আমি আশা করছি আপনি খুব দ্রুত নিজেকে গড়ে তুলতে পারবেন।

অনেকেই নিজে কাজ না করে অন্যের কাজ দেখে কোন কিছু ভাল আয়ত্ত্বে আনতে পারে। আপনি যদি এই লাইনের কেউ হয়ে থাকেন তবে ট্রাই করুন।

এসব নানান দিক চিন্তা করার পর আপনি একটি বিষয় ঠিক করতে পারেন যে কোন বিষয়টি আপনার সাথে মিলে যায়।

যদি দেখেন একটি বিষয় আপনার সাথে স্যুট করছে তাহলে দেরী না করে সেটি করে ফেলুন।

আশা করি, আপনি খুব দ্রুত সফল হতে পারবেন।

তবে একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন, অনলাইন হউক আর অফলাইন টাকা আয় করা কিন্তু মোটেই কোন সহজ কাজ নয়।

তবে একবার নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারলে আপনি খুব সহজেই অনেক ভাল পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারেন এতে কোনরূপ সন্দেহই নেই।

তাই লেগে থাকুন। সময়কে কাজে লাগান। আপনি পারবেন। কেননা অন্য সফল কারো দিকে নজর দিন। 

আমার কথা হচ্ছে অন্য একজন যদি পারে তবে আপনি কেন পারবেন না? তার যদি দুটি হাত থাকে তবে আপনারও আছে!

তার মাথা নিশ্চয় একটি। সুতরাং সে যা পারবে চেষ্টা করলে আমিও নিশ্চয় পারবো। এরকম একটি টেন্ডেন্সি মনের মাঝে তৈরী করুন।

আপনার সফলতা কামনা করে আজকের মত এখানে যাত্রা বিরতি দিচ্ছি। ভাল থাকবেন, সুস্থ্য থাকবেন।

 

আপনি পছন্দ করতে পারেন,

শপিফাই কেন এত জনপ্রিয়?

 

আল্লাহ্ হাফেজ।

 

2 thoughts on “Freelancing (ফ্রিল্যান্সিং) শিখবো কিভাবে? সেরা কৌশল”

  1. অনেক সুন্দর লিখেছেন ভাই। নিত্যটিউনের দীর্ঘায়ু কামনা করছি। জাভাস্ক্রিপ্ট সম্পর্কে একটি পোস্ট চাই।

    1. ধন্যবাদ। জাভাস্ক্রিপ্ট নিয়ে অলরেডি টিউনমেন্ট করা আছে এখান থেকে দেখতে পারেন। আমাদের সাথে আপনারও দীর্ঘায়ু কামনা করি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *