affiliate-marketing

অ্যাফিলিয়েট থেকে আয় করুন আনলিমিটেড (সেরা মার্কেটপ্লেস)

 

আপনি কি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা ইনকাম করতে চান? কিন্তু বাংলাদেশিদের জন্য কোন এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস গুলো ভালো হবে সে সম্পর্কে আপনার ধারণা নেই। কোনো টেনশন নেই। কারণ ”অ্যাফিলিয়েট থেকে আয় করুন আনলিমিটেড” শীর্ষক আজকের এই টিউনটিতে আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করতে যাচ্ছি, সেরা ৫টি এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে।

যেই এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস গুলো বাংলাদেশের এফিলিয়েট মার্কেটারদের জন্য সেরা হবে বলে আমি মনে করি।

তো চলুন বেশি কথা না বলে, জেনে নেই বাংলাদেশীদের জন্য সেরা ৫টি এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে।

 

১. আম্যাজন এসোসিয়েটস (Amazon Associates)

আম্যাজন এসোসিয়েটস হচ্ছে আম্যাজন এর একটি এফিলিয়েট প্রোগ্রাম। আম্যাজন এর এই এফিলিয়েট প্রোগ্রাম বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বর্তমানে আম্যাজন এসোসিয়েটস নামক আম্যাজন এর এই এফিলিয়েট প্রোগ্রামে ৯০কোটি মার্কেটার রয়েছে।

অন্যান্য এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর মতন ঠিক এইখানেও আপনি আম্যাজন এর প্রোডাক্ট বিক্রি করে কমিশন লাভ করতে পারবেন।

আম্যাজন এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ টাকা আয় করতে হলে আপনাকে প্রথমে একটি মানসম্মত প্রোডাক্ট খুঁজতে হবে। প্রোডাক্ট খুঁজার পর সেই প্রোডাক্ট এর লিংক কপি করে নিতে হবে।

তারপর আপনার কপি করা লিংকটি অনলাইনে শেয়ার করতে হবে। অনলাইনে আপনার শেয়ার করা সেই প্রোডাক্ট লিংকে ক্লিক করে যদি কেউ ওই প্রোডাক্টটি কিনে তাহলে আপনি কমিশন পেয়ে যাবেন।

এখন আপনার কমিশন নির্ভর করে আপনি কি ধরণের প্রোডাক্ট বিক্রি করেছেন তার কমিশন রেট এর উপর।

মূলত প্রোডাক্টের ধরণ অনুযায়ী কমিশন রেট আর প্রোডাক্টের মূল্যের উপর আপনি কি ধরণের কমিশন বা লাভ পাবেন তা নির্ভর করে।

আম্যাজন এসোসিয়েটস প্রোগ্রামে নির্দিষ্ট করে সকল পণ্যের ধরণ অনুযায়ী কমিশন রেট উল্লেখ করা রয়েছে।

আপনি সেখান থেকে জেনে নিতে পারবেন সকল প্রোডাক্টের কমিশন রেট।

 

অ্যাফিলিয়েট থেকে আয়

 

এখন জেনে নেই আম্যাজন থেকে কিভাবে টাকা তুলতে হয়।

আম্যাজন এসোসিয়েটস প্রোগ্রাম থেকে টাকা উক্তোলন করার কিছু পদ্ধতি হচ্ছে :

  • লোকাল ব্যাঙ্ক
  • চেক
  • আম্যাজন গিফট কার্ড

 

 অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়

 

২. দারাজ এফিলিয়েট প্রোগ্রাম (Daraz)

দারাজ এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকেও বর্তমানে সবাই খুব ভালো পরিমাণের একটা টাকা ইনকাম করছে।

দারাজের এই এফিলিয়েট প্রোগ্রামের প্রত্যেক পণ্যের বিক্রির উপর ১২% কমিশন রেট রয়েছে।

অর্থাৎ আপনি যদি দারাজ থেকে কোনো বিক্রি করেন তাহলে আপনি সেই পণ্যের মূল্য অনুযায়ী ১২% কমিশন বা লাভ পাবেন।

দারাজ এফিলিয়েট প্রোগ্রামের হয়ে আপনার কাজ করতে হলে প্রথমেই আপনার দারাজের এফিলিয়েট প্রোগ্রামের একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে।

সেই ফর্মে আপনাকে আপনার তথ্য, আপনার ব্যাংকের তথ্য ও আপনি কোন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ব্যবহার করে মার্কেটিং করবেন আর সেই প্লাটফর্মে আপনার মাসিক কত ভিউয়ার্স হয়ে থাকে সেইসকল তথ্য আপনাকে দিতে হবে।

ফরমটি পূরণ করার পর দারাজ আপনার পূরণ করা ফরমটি দেখে যাচাই করে আপনাকে তাদের এফিলিয়েট প্রোগ্রামে কাজের জন্য অনুমতি দিবে।

এই ফরমটি আপনি দারাজ এফিলিয়েট প্রোগ্রামের ওয়েবসাইটে পেয়ে যাবেন। আপনি যদি ফরমটি কিভাবে পূরণ করতে হয় তা না জানেন, তাহলে আপনি ইউটুবের সহায়তা নিতে পারেন।

 

Shopify (শপিফাই) কেন এত জনপ্রিয়?

 

 

৩.বিডিশপ (BDShop)

বিডিশপ বর্তমানে এফিলিয়েট প্রোগ্রাম হিসেবে বাংলাদেশে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এই এফিলিয়েট প্রোগ্রামে আপনি জয়েন করে টাকা ইনকাম করতে চাইলে আপনার একটি ফেইসবুক পেজ/ব্লগ/ইউটুব চ্যানেল থাকতে হবে।

তবেই আপনি ভালো পরিমান টাকা এই এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে আয় করতে পারবেন। বিডিশপ এর কমিশন রেট প্রথম দিকে ৩% থাকে এবং আস্তে আস্তে এই রেট আপনার ট্রাফিক বাড়ার সাথে বাড়তে থাকবে।

বিডিশপ থেকে টাকা উক্তোলন করা অনেক সহজ। এখন থেকে আপনি বিকাশ অথবা রকেট থেকে টাকা উক্তোলন করতে পারবেন।

আর এছাড়াও ব্যাঙ্ক ট্রান্সফার এর মাধ্যমেও আপনি টাকা তুলতে পারবেন।

৪.বইখাতা (Boikhata)

এই এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস থেকে আপনি বইখাতা বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন। এইখানে কাজ করা খুবই সহজ। শুধু আপনার লিংক শেয়ার করতে হবে।

কেউ যদি আপনার শেয়ার করা লিংক থেকে বইখাতা কিনে তাহলে আপনি একটা কমিশন পেয়ে যাবেন এখন থেকে টাকা উক্তোলন করা খুবই সহজ।

এখন থেকে আপনি বিকাশ থেকে টাকা উঠতে পারবেন। আপনি যদি অনলাইন বই রিভিউ করে থাকেন ফাহলে এই মার্কেটপ্লেসটি আপনার জন্য সেরা হবে।

বাংলাদেশে অ্যাফিলিয়েট

 

 

৫. ব্রুনো (Bruno)

এটি এক ধরণের শপিং ওয়েবসাইট যেখানে আপনি বেশিরভাগ মেয়েদের পণ্য পাবেন। এখানে বিভিন্ন পারফিউম, হাতঘড়ি পাওয়া যায়।

এখান থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করেও আপনি ভাল পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারেন। ব্রুনো কর্তৃপক্ষ আপনাকে বিকাশ কিংবা ব্যাংক এর মাধ্যমে পরিশোধ করবে। 

মোটামুটি ১০০০ টাকা হলেই উইথড্র করতে পারবেন।

 

৬. Bohubrihi (বইখাতা)

বহুব্রীহি হচ্ছে একটি বাংলাদেশী ই-লার্নিং ওয়েবসাইট যেখানে বিভিন্ন কোর্স, প্রফেশনাল ট্রেনিং সার্ভিস প্রদান করে থাকে।

(Bohubrihi) বহুব্রীহি নামক এই ওয়েবসাইটের একটি এফিলিয়েট প্রোগ্রামও রয়েছে যেখানে আপনি তাদের বিভিন্ন কোর্স বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

বহুব্রীহি ওয়েবসাইট থেকে আপনি পণ্য বিক্রি করলে প্রতি পণ্য বিক্রির উপর ২০% কমিশন বা লাভ পাবেন।

 

অ্যাফিলিয়েট থেকে আয়

 

বহুব্রীহি তাদের এফিলিয়েট মার্কেটারদের মাসে ২বার পেমেন্ট দিয়ে থাকে।

একবার মাসের ১৪ তারিখ আরেকবার ২৮ তারিখ। আপনার একাউন্টে ২০০০ টাকা হয়ে গেলে আপনি বিকাশ,নগদ,রকেট ও ব্যাঙ্ক ট্রান্সফার এর মাধ্যমে পেমেন্ট উক্তোলন করতে পারবেন।

 

৭. ShareAsale (শেয়ারএসেল)

shareAsale হচ্ছে খুবই জনপ্রিয় একটি ই-কমার্স এফিলিয়েট ওয়েবসাইট। এই এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেসটি ১৭বছর ধরে কাজ করে আসছে এবং মার্কেটে তাদের ।

খুবই সুনাম রয়েছে। তাদের বর্তমানে ২২৫মিলিয়ন পাবলিশার রয়েছে। তাই আপনি নিশ্চিন্তায় এখানে কাজ করতে পারবেন।

এখানে কাজ করতে হলে আপনার একটি ভালো ব্লগ/ওয়েবসাইট লাগবে। যেখানে ভালো পরিমানের একটা ট্রাফিক রয়েছে।

এখন থেকে পায়নীর এর মাধ্যমে টাকা উক্তোলন করতে পারবেন।

shareAsale আপনার উইথড্রয়েড় সময় ২০% ফী হিসেবে আপনার টাকা থেকে কেটে নিবে।

 

 

৮. CJ affiliates (সিজেএফিলিয়েট)

cj affiliates হচ্ছে খুব পুরান আর সবচেয়ে বড় এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস। এই মার্কেটপ্লেসটি ১৯৯৮খ্রিস্টাব্দে নির্মিত হয়।

এই মার্কেটপ্লেস থেকে আয় করতে চাইলে প্রথমে আপনার তাদের এপ্রুভাল পেতে হবে। এপ্রুভাল না পেলে আপনি আয় করা শুরু করতে পারবেন।

এইখান থেকে কিভাবে সাইন আপ করতে হয়, সেই ব্যাপারে আপনি ইউটুবে অনেক টিউটোরিয়াল পেয়ে যাবেন।

এই মার্কেটপ্লেসের কোনো নির্দিষ্ট কমিশন রেট নেই।

এখান থেকে আপনি ব্যাঙ্ক ট্রান্সফার এর মাধ্যমে টাকা নিতে পারবেন। এইখানে আপনি ট্রাফিক সোর্স হিসেবে যেকোনো সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ইউজ করতে পারবেন।

তো আমাদের আজকের টিউনটি এই পর্যন্তই। যারা এতক্ষন এই টিউন টি মনোযোগ সহকারে পড়লেন তাদের জানাই আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ।

আশা করি আপনারা Nittotune এর সাথেই থাকবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *