ব্লগ লিখে আয়

আর্টিকেল লিখে ৬০০০০+ টাকা আয় করার ওয়েব কম্বো প্যাক

  • Post author:

আর্টিকেল লিখে আয় – বর্তমান সময় ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইট অনলাইন আয়ের অন্যতম জনপ্রিয় একটি মাধ্যমে পরিণত হয়েছে। এর মাধ্যমে অনেক ফ্রিল্যান্সার হাজার হাজার নয় বরং লক্ষ্যাধিক পরিমাণ অর্থ আয় করছে। তাহলে আপনিও কি চাচ্ছেন প্রতি মাসে ৬০০০০+ টাকা আয় করতে?

পাশাপাশি, একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বিশ্বের বুকে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে? হ্যাঁ আপনিও হতে পারেন একজন সফল ফ্রিল্যান্সার। 

কিন্তু কিভাবে? চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক। নিত্যটিউন আপনার জন্য নিয়ে এসেছে আর্টিকেল লিখে ৬০০০০+ টাকা সুনিশ্চিত আয়ের ওয়েব কম্বো প্যাক।

এই ওয়েব প্যাকেজটি আপনার ফ্রিল্যান্সার (আর্টিকেল রাইটার) হওয়ার জন্য শতভাগ ভূমিকা রাখবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

মনে রাখবেন একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার জন্য একটি সুন্দর ও আকর্ষণীয় ওয়েবসাইট অত্যাবশ্যকীয়।

কিন্তু আপনি কি জানেন কিভাবে একটি ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইট তৈরি করতে হয়? আর কিভাবেইবা এর থেকে আয় করা যায়? Don’t worry. নিত্যটিউন রয়েছে আপনার পাশে। 

মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে রেডি টু ইউজ ওয়েবসাইট তৈরি এবং সেই ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লিখে ৬০ হাজারের বেশি টাকা ইনকাম করার সুবর্ণ সুযোগ নিয়ে এসেছে নিত্যটিউন। 

পোস্ট সূচিপত্র

নিত্যটিউন দিচ্ছে আর্টিকেল লিখে ৬০০০০+ টাকা আয় করার ওয়েবসাইট প্যাকেজ

অনলাইন মানি আর্নিং এবং সার্ভিসিং সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নিত্যটিউন দীর্ঘদিন ধরে সফলতার সাথে কাজ করে চলছে।

আর তারই ধারাবাহিকতায় নিত্যটিউন এবার নিয়ে এসেছে আর্টিকেল লিখে ৬০০০০+ টাকা আয় করার ওয়েব কম্বো প্যাকেজ। ‌

এই কম্বো প্যাকেজে আমরা একটি সুন্দর এবং প্রফেশনাল বাংলা ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করে দিব। যেখানে আপনি আপনার লেখা আর্টিকেলগুলো পাবলিশ করতে পারবেন।

আর আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন অসংখ্য অর্থ। আর এ অর্থ আয় করতে পারেন সম্পূর্ণ ঘরে বসেই। 

তবে সবথেকে বড় সুখবর হচ্ছে, এই কম্বো প্যাকেজটি আমরা অফার করছি বর্তমান মার্কেট সাপেক্ষে অত্যন্ত সাশ্রয়ী মূল্যে।

মাত্র ২৬,‌৯৯৯ টাকায় আপনি পেয়ে যাচ্ছেন একটি READY-TO-EARN ওয়েবসাইট। ওয়াও! তবে কিছু ডিসকাউন্ট হলে ভালো হতো না!

অবশ্যই, কেউ যদি এই মুহূর্তে প্যাকেজটি অর্ডার করেন তাহলে পেয়ে যাচ্ছেন ৬,৯৯৯ টাকার বিশাল ডিসকাউন্ট!  

জেনে নিন কি কি থাকছে নিত্যটিউনের এই ওয়েব কম্বো প্যাকেজে

নিত্যটিউন কর্তৃক প্রদত্ত এই ওয়েব কম্বো প্যাকেজ হতে পারে আপনার জীবনের সেরা ও একই সাথে স্থায়ী উপার্জনের অন্যতম মাধ্যম। চলুন জেনে নেই কি কি থাকছে নিত্যটিউনের এই ওয়েব কম্বো প্যাকেজে –

  • একটি রেডি টু আর্ন ব্লগ ওয়েবসাইট (ডোমেইন/হোস্টিং রেজিঃ/কানেক্ট) 
  • আকর্ষণীয় ডিজাইন
  • প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ইনস্টলেশন
  • ওয়েবসাইটের SEO এবং কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সংশ্লিষ্ট (CMS) সেট-আপ
  • Google এডসেন্স রিকোয়ারমেন্ট পেজ তৈরি ও সংযোজন 
  • ৩৫টি ইউনিক ও SEO-FRIENDLY হাই কোয়ালিটি আর্টিকেল
  • ১ বছরের ফ্রি টেকনিক্যাল সাপোর্ট
  • এক বছরের ফ্রি সাপোর্ট শেষে সীমিত মূল্যে লাইফ টাইম টেকনিক্যাল সাপোর্ট 
  • ২৪/৭ সাপোর্ট সিস্টেম তথা দিন কিংবা রাত সপ্তাহের সাত দিনই যেকোনো সময় প্রয়োজনীয় সাপোর্ট প্রদান।

কেন নিত্যটিউন থেকে ওয়েবসাইট প্যাকেজটি ক্রয় করবেন? 

আপনি কি নিত্যটিউন থেকে ওয়েবসাইট প্যাকেজটি ক্রয় করতে চাচ্ছেন? কিন্তু কেন বলুনতো? এর উত্তরে বলব, কেবলমাত্র আমরাই অফার করছি সব থেকে কম মূল্যের ওয়েব কম্বো প্যাকেজ, যাতে করে যে কেউ ঘরে বসে একটি লাইফ টাইম আর্নিং সোর্স পেতে পারেন।

এছাড়াও নিত্যটিউনের ওয়েবসাইট প্যাকেজটি থেকে আপনি যা যা পাবেন: 

  • একটি আকর্ষণীয়, সহজে ব্যবহার উপযোগী এবং আয়যোগ্য ব্লগ ওয়েবসাইট।
  • একটি স্ট্রং SEO সেটআপ, যা আপনার ওয়েবসাইটটিকে গুগলের ফার্স্ট পেজে RANK করতে সাহায্য করবে।
  • ওয়েবসাইটের কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, যাতে খুব সহজেই আপনি আপনার আর্টিকেলগুলি ম্যানেজ করতে পারেন।
  • ওয়েবসাইটে ৩৫টি ফ্রি ইউনিক আর্টিকেল লিখে দেওয়া, যাতে গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভাল পেতে সহজ হয় এবং খুব দ্রুতই আপনি সাইটটি থেকে ইনকাম করা শুরু করতে পারেন। 
  • ৭ দিনের মধ্যে একটি Ready-to-Use ওয়েবসাইট।
  • এছাড়াও এক বছরের ফ্রী টেকনিক্যাল সাপোর্ট। এর মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের যেকোন সমস্যা আমাদের দ্বারা ফ্রিতে সমাধান করিয়ে নিতে পারবেন। 
  • এমনকি এক বছর পরবর্তী পেইড সাপোর্টের ক্ষেত্রে পেয়ে যাবেন ৬০-৭০% ডিসকাউন্ট।
  • আরও রয়েছে সর্বোচ্চ তিন ধাপে প্যাকেজের মূল্য পরিশোধের সুযোগ। অর্থাৎ কেউ যদি একবারে সম্পূর্ণ অর্থ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হন তাহলে মন ভাঙ্গার কিছু নেই। নিত্যটিউনের সাথে আপনিও পৌঁছে যেতে পারেন সফলতার সর্বোচ্চ শিখরে। 

কিভাবে ওয়েবসাইট প্যাকেজটি অর্ডার করবেন? 

এবার চলুন জেনে নেই কিভাবে নিত্যটিউনের ওয়েবসাইট প্যাকেজটি অর্ডার করবেন। নিত্যটিউনের ওয়েবসাইট প্যাকেজটি নিতে হলে অবশ্যই প্রথমে আপনাকে নিত্যটিউন টিমের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

যোগাযোগ করার জন্য আমাদের ইমেইল করতে পারেন এই ঠিকানায় pro@nittotune.comএছাড়াও কথা বলতে পারেন whatsapp +8801797280088, messenger এবং সরাসরি লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে।  

অর্ডার না করে ওয়েবসাইট নিজে থেকে তৈরি করতে কত খরচ হবে? 

অর্ডার না করে ওয়েবসাইট তৈরির খরচ একাধিক বিষয়ের উপর নির্ভরশীল। যেমন- আপনি যদি ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে না জানেন তাহলে প্রথমে আপনাকে একটি ওয়েবসাইট ডিজাইন কোর্স করতে হবে। 

আবার আপনি যদি সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ না হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনাকে আরো একটি কোর্স করতে হবে। এক্ষেত্রে কোর্স ফি ১০ হাজার টাকা থেকে প্রতিষ্ঠান ভেদে  ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে। 

এছাড়াও ডোমেইন, হোস্টিং এবং সিএমএস (CMS) ক্রয় করার জন্য ২১,০০০-৫৪,৯০০ টাকা পর্যন্ত কিংবা অনেক ক্ষেত্রে এর থেকেও বেশি  খরচ হতে পারে। পাশাপাশি ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লেখার বিষয়টি তো থাকছেই।

আপনি যদি সাইটের জন্য কোন রাইটার হায়ার করতে চান সেক্ষেত্রেও আপনাকে অনেক অর্থ ব্যয় করতে হবে।

নরমালি, প্রতি কনটেন্ট ৩০০ টাকা করে ৩৫টি কন্টেন্টের জন্য ☞ ৩৫×৩০০= ১০,৫০০ টাকা।

এক নজরে দেখে নেয়া যাক ওয়েবসাইট নিজে থেকে তৈরি করতে কত খরচ হবে।

আইটেমের নাম  সম্ভাব্য খরচ
ডোমেইন ১০০০৳-৫০০০৳ (প্রতি বছর) 
ওয়েব হোস্টিং ৫৪৯৳-৫০০০৳ (প্রতি মাস)
কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (CMS) ০৳-১০০০০০৳ (প্রতি বছর)
সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন(SEO) ৫০০০৳-২৫০০০৳/তদুর্থ (প্রতি মাস)
আর্টিকেল ১০,০০৳-৩০,০০০৳ (প্রতি মাস)
মেইনটেনেন্স ৫০০০৳-৫০,০০০৳/তদুর্থ (প্রতি বছর)
ওয়েবসাইট ডিজাইন + ডেভেলপমেন্ট  ১০,০০০৳-১০০,০০০৳/তদুর্থ

কেমন সময় ব্যয় হতে পারে নিজে থেকে সাইট ম্যানেজ করতে?

একটি সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট তৈরি করা প্রচুর শ্রম এবং অনেক সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। তাই একটি ওয়েবসাইট যদি আপনি নিজে নিজেই বানাতে চান সেক্ষেত্রে প্রায় ৬ মাস থেকে ১ বছর পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

আবার অনেক সময় একটি ওয়েবসাইট থেকে আর্নিং আসতে সর্বোচ্চ দুই বছর পর্যন্ত সময় লেগে যায়।

এতটা দীর্ঘ সময় নিয়ে আর্টিকেল লিখে আয় করার জন্য অপেক্ষা করতে গিয়ে নতুন অনেকেই অনলাইনের হালই ছেড়ে দেন।

তবে কারো যদি পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে থাকে তাহলে একটি ওয়েবসাইট বানাতে তুলনামূলক কম সময় লাগতে পারে।

যাইহোক, চলুন দেখে নেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে সম্ভাব্য কত সময় লাগতে পারে 

ওয়েবসাইটের ধরন সম্ভাব্য সময়
সাধারণ ব্লগ ওয়েবসাইট ১-৪ সপ্তাহ 
ছোটখাটো বিজনেস ওয়েবসাইট ৪-৮ সপ্তাহ
ই-কমার্স ওয়েবসাইট ২-৬ মাস
কাস্টম ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন ৩-১২ মাস/তদু্র্থ

নিত্যটিউন কেন সেরা? + আমরাই সেরাদের সেরা কেন জানুন 

নিত্যটিউন অন্যতম সেরা এবং বিশ্বস্ত একটি অনলাইন ক্যারিয়ার সহযোগী প্ল্যাটফর্ম। কেননা শুধুমাত্র প্যাকেজ সেল করাই নিত্যটিউনের মূল লক্ষ্য নয়। বরং আপনার আয় সুনিশ্চিত করা আমাদের প্রধানতম দায়িত্ব।

একটি আয় উপযোগী ওয়েবসাইট তৈরির মাধ্যমে নিত্যটিউন আপনার অনলাইন ক্যারিয়ারকে সফল এবং আরো অধিক শক্তিশালী করতে বদ্ধপরিকর। 

এছাড়াও নিত্যটিউন প্রতিটি প্রজেক্টে সম্পূর্ণ জেনুইন টুলস ব্যবহার করার মাধ্যমে শতভাগ সিকিউরিটি নিশ্চিত করে।

পাশাপাশি দিন-রাত ২৪ ঘন্টা, সপ্তাহে ৭ দিন যেকোনো সময় ওয়েব প্যাকের যেকোনো প্রয়োজনে আপনাদের পাশে রয়েছে। 

নিত্যটিউনের রয়েছে আংশিক পেমেন্ট সুবিধা। আর প্রতিটি কাজের কোয়ালিটি নিশ্চিত করতে পারি বলেই আমরা এই সুবিধা প্রদান করতে সক্ষম। সেই সাথে সার্ভিস পছন্দ না হলে সুনিশ্চিত মানি ব্যাক গ্যারান্টি তো থাকছেই।

সর্বোপরি আমরা গ্রাহকের শতভাগ সন্তুষ্টি অর্জনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আর তাই নিত্যটিউনের আজকের স্লোগান “আমরাই সেরাদের সেরা।”

আর্টিকেল লিখে আয় করার জন্য নিত্যটিউন পরিবারের পক্ষ্য হতে প্রতিনিয়তই সাপোর্ট পাবেন ইনশাআল্লাহ্।

আমাদের তৈরিকৃত ওয়েবসাইট থেকে কি কি উপায়ে আয় করতে পারবেন? 

আমাদের তৈরিকৃত ওয়েব কম্বো প্যাক থেকে আপনি আপনার সুবিধামতো এবং পছন্দ অনুযায়ী বিভিন্ন উপায়ে আয় করতে পারেন।

আপনি যদি আমাদের দেওয়া গাইডলাইন সঠিকভাবে ফলো করেন এবং আপনার আর্টিকেলগুলো যদি এসইও ফ্রেন্ডলি হয়, তাহলে নিচের যেকোনো উপায়ে আপনি আয় করতে পারেন। 

১। গুগল এডসেন্স থেকে আয় 

ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স। আপনার ওয়েবসাইটটি যেহেতু আমরা এডসেন্সের নীতিমালা অনুসরণ করে তৈরি করছি, সেহেতু এডসেন্স অ্যাপ্রুভাল নিয়ে আপনাকে কোন দুশ্চিন্তা করতে হচ্ছে না। খুব সহজেই গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভাল পেয়ে যাবেন। প্রতিনিয়ত কোয়ালিটি কনটেন্ট লেখার মাধ্যমে এবং সেই সাথে, Google এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। এভাবে আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারেন অজস্র ক্যাশ!

২। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় 

আমাদের তৈরিকৃত ওয়েবসাইট থেকে আয় করার আরো একটি মাধ্যম হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

অর্থাৎ আপনি আপনার ওয়েবসাইটের আর্টিকেল গুলিতে বিভিন্ন কোম্পানির পণ্য বা পরিষেবার বিজ্ঞাপন দিতে পারেন। 

এরপর যখন কেউ আপনার দেয়া বিজ্ঞাপন দেখে ওই পণ্য বা পরিষেবাটি ক্রয় করবে, তখন আপনি সেই কোম্পানি থেকে একটি নির্ধারিত পরিমাণ কমিশন লাভ করার মাধ্যমে আয় করতে পারেন। 

৩। স্পন্সরশীপ 

ওয়েবসাইট থেকে আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় উপায় হলো স্পন্সরশীপ। আপনি আপনার ওয়েবসাইটে বিভিন্ন কোম্পানির পক্ষ থেকে অর্থের বিনিময়ে তাদের পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কিত প্রমোশনাল কন্টেন্ট লিখে ইনকাম করতে পারেন। 

৪। ডোনেশন থেকে আয় 

আপনার ওয়েবসাইটটিতে যদি ভালো পরিমান ভিজিটর থেকে থাকে তাহলে তাদের কাছ থেকে ডোনেশনের মাধ্যমেও আর করতে পারেন। ‌

৫। ই-কমার্স এর মাধ্যমে আয় 

আপনার যদি ইতোমধ্যে কোন ব্যবসা বা ফেসবুকে বিজনেস পেজ থেকে থাকে তাহলে নিত্যটিউন আপনার সাইটটিকে একটি ই-কমার্স সাইটে রূপান্তর করতে সহায়তা করবে। এর মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের তৈরি পণ্য বা বিভিন্ন উৎস থেকে সংগ্রহকৃত পণ্য বিক্রি করে তা থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারবেন। 

আপনি পছন্দ করতে পারেন,

আর্টিকেল লিখে আয় পেমেন্ট বিকাশে – সেরা পোস্ট রাইটিং প্লাটফর্ম

অনলাইন থেকে আয় করুন সহজ উপায়ে – ফ্রিল্যান্সিং ট্রেনিং

ট্রেনিং ও পোস্ট নীতিমালা – আর্টিকেল লিখে আয় করুন আনলিমিটেড!

অর্থাৎ বিটুবি (Business to Business) ও বিটুসি (Business to Customer) উভয় মাধ্যমে আপনি আমাদের তৈরি ওয়েবসাইট থেকে উপার্জন করতে সক্ষম। 

৬। ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বিক্রি করে আয়

আপনার ওয়েবসাইটে যদি অনেক জনপ্রিয় হয়ে থাকে এবং নিয়মিত ট্রাফিক আসতে থাকে তাহলে আপনি সাইটের ট্রাফিক বিক্রি করেও আয় করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি যখন কোন ওয়েবসাইট বা সংস্থার লিংক আপনার সাইটের আর্টিকেলে যুক্ত করবেন, তখন ঐ সাইট বা সংস্থা প্রতি ক্লিকের বিনিময়ে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করবে। 

FAQ 

নিত্যটিউনের ওয়েবসাইট প্যাকেজ নিয়ে আলোচনার এ পর্যায়ে চলুন প্যাকেজ সম্পর্কিত আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর জেনে নেওয়া যাক। 

ওয়েব কম্বো প্যাকের জন্য অর্ডার  করার পর আমার করনীয় কি?

আপনি যখন অর্ডার করবেন ঠিক তারপর থেকেই আপনার কাজও শুরু হয়ে যাবে। সাইটের ডিজাইন শেষ হলে আমরা প্রতিনিয়ত আর্টিকেল সাবমিট করবো, আপনি সেগুলো আপনার সার্চ কনসোলে এড করবেন। এটা করতে না পারলে দেখিয়ে দেওয়া হবে, সুতরাং দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই!

ওয়েবসাইট তো রেডি এখন আমার করনীয় কি?

একটি নতুন ওয়েবসাইট রেডি হওয়ার পর সর্বপ্রথম ওয়েবসাইটের প্রচার-প্রসার ঘটাতে হবে। এজন্য বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে ওয়েবসাইটের লিংক শেয়ার করা যেতে পারে। কেননা একটি ওয়েবসাইট যতবেশি জনপ্রিয় হবে ততবেশি সেই ওয়েবসাইটে ট্রাফিক আসতে শুরু করবে। সেই সাথে এসইও ফ্রেন্ডলি কনটেন্ট প্রতিনিয়তই লিখে যেতে হবে।

আমিতো সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না কি করব?

যদি আপনার ইচ্ছাশক্তি থাকে আর পর্যান্ত পরিমাণ ধৈর্য থাকার পরেও সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যায় পড়েন তাহলে আপনার দুশ্চিন্তা দূর করতে আজই আর দেরি কেন এক্ষুনি কথা বলুন লাইভ চ্যাটে!

আচ্ছা আমি তো ওয়েবসাইট তৈরি করতে জানি সাথে কনটেন্ট writing ও ভালো পারি তাহলে আমার কি পরিমান অর্থ লাগতে পারে এই কম্বো প্যাকের জন্য? 

এরূপ ক্ষেত্রে, আপনি আমাদের গুগল এডসেন্স ব্লগিং সার্ভিসটি নিতে পারেন। তাহলে আজই সিদ্ধান্ত নিন।

আর ওয়েব কম্বোপ্যাক ক্রয় করুন সেই সাথে, আর্টিকেল লিখে আয় করুন হাজার হাজার টাকা।তাহলে দেরী কেন করছেন? এক্ষুণি লাইভ চ্যাটে কথা বলে কনফার্ম হয়ে নিন!

Author

This Post Has 2 Comments

  1. Shihabul Islam

    It’s a Good Initiative for those who want to become freelancers. This Course is beneficial for those people who are Beginner or Intermediate Freelancer.

    1. nTune

      Thanks for your valuable comments & hope you will stay with us further…

Leave a Reply